স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ১st সেপ্টেম্বর ২০২০

মুক্তিযোদ্ধা প্রকৌশলী কামরুল ইসলাম সিদ্দিক-এর ১২তম মৃত্যু বার্ষিকী পালিত ।


প্রকাশন তারিখ : 2020-09-01

 

১ সেপ্টেম্বর ২০২০ এলজিইডির সাবেক প্রধান প্রকৌশলী কামরুল ইসলাম সিদ্দিক-এর ১২তম মৃত্যু বার্ষিকী।  দেশবরেণ্য প্রকৌশলী কামরুল ইসলাম সিদ্দিক ১৯৪৫ সালে ২০ জানুয়ারি কুষ্টিয়া জেলায় জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ১ সেপ্টেম্বর ২০০৮ সালে যুক্তরাষ্ট্রের নিউজার্সিতে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে ইন্তেকাল করেন। কামরুল ইসলাম সিদ্দিক ১৯৬৬ সালে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) থেকে সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং-এ স্নাতক এবং ১৯৭৭ সালে যুক্তরাজ্যের শেফিল্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আরবান এন্ড রিজিওনাল প্ল্যানিং এর ওপর স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন। বহুমাত্রিক প্রতিভা, কর্মদক্ষতা ও দূরদৃষ্টিসম্পন্ন এ মহান প্রকৌশলী বাংলাদেশের গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়নের অন্যতম রূপকার। স্বাধীনতা-উত্তর বাংলাদেশের গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়নে তিনি অভূতপূর্ব দূরদৃষ্টির পরিচয় দেন। সময়োপযোগী কর্মপরিকল্পনা ও উদ্যোগ এবং এর সফল বাস্তবায়ন গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়নকে ভিন্ন উচ্চতায় নিয়ে যায়। তিনি ১৯৭১ সালে স্নাতকোত্তর যুদ্ধে সক্রিয় মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে অংশগ্রহণ করেন। মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্ধুদ্ধ হয়ে তিনি স্বীয় কর্মপন্থা নির্ধারণ করেন। দেশের গ্রামীণ আর্থ-সামাজিক অবস্থা উন্নয়নে যে অবদান তিনি রেখেছেন  দেশ-বিদেশে সকলের কাছে তা স্মরণীয় ও অনুকরণীয় হয়ে থাকবে।

কামরুল ইসলাম সিদ্দিক ছিলেন দক্ষ ব্যবস্থাপক ও উদ্ভাবনী চিন্তায় পরিপূর্ণ একজন মানুষ। তিনি গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ  সরকারের সচিব, বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান, ইনস্টিটিউশন অব ইঞ্জিনিয়ার্স, বাংলাদেশ (আইইবি) এর সভাপতি, ঢাকা ট্রান্সপোর্ট কো-অর্ডিনেশন বোর্ড এর নির্বাহী পরিচালকের দায়িত্ব পালন করেন। তিনি ২০০৩-০৪ মেয়াদে গ্লোবাল ওয়াটার পার্টনারশীপের দক্ষিণ এশিয়া অঞ্চলের প্রথম চেয়ারপারসন নির্বাচিত হন।

কামরুল ইসলাম সিদ্দিক দক্ষিণ এশিয়ার পল্লি অবকাঠমো উন্নয়নের ইতিহাসে এক অনুকরণীয় ব্যক্তিত্ব। তাঁর মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষ্যে ১ সেপ্টেম্বর ২০২০ মঙ্গলবার বাদ যোহর এলজিইডির সদর দপ্তর ও জেলা পর্যায়ে দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়।


Share with :

Facebook Facebook